• রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৪:৫৯ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
ব্রেকিং নিউজঃ
গোমস্তাপুরে করোনায় মারা যাওয়া সেনাসদস্যকে সামরিক মর্যদায় দাফন নড়াইলের পল্লীতে করোনায় এক মহিলা মৃত্যু পঞ্চগড়ের ট্রলি সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ যাত্রী নিহত মানবতার ফেরিওয়ালা কাশিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নেতৃত্বে মাস্ক বিতরণ নীলফামারীতে ২য় পর্যায়ে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে গৃহ প্রদানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন সিরাজগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার সহ ২০ লাখ টাকার হেরোইন উদ্ধার সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের চাবি হস্তান্তর পীরগঞ্জে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান টাঙ্গাইলের মধুপুরে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মাঝে নূতন ঘরসহ জমি হস্তান্তর যাদু কাটা নদীতে লাখো শ্রমিকের মুখে হাসি
নোটিশঃ
যুগান্তর টাইমস - এ সারাদেশে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...




পীরগঞ্জে চাহিদার সঙ্গে লিচুর দামও বেড়েই চলছে

আসাদুজ্জামান,পীরগগঞ্জ (ঠাকুরগাঁ) / ৫৭ বার পড়া হয়েছে
প্রকাশিত হয়েছে : বুধবার, ৯ জুন, ২০২১




রমজান ঈদ পের হওয়ার পর চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় গাছ থেকে লিচু নামাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন বাগান মালিকরা।

ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলায় ছোট-বড় প্রায় ১২০ হেক্টর জমি লিচু বাগান রয়েছে।

এ ছাড়াও বাগান থেকে লিচু কিনছেন ব্যবসায়ীরা ও আড়তদাররা। বাগানে প্রতিপিস লিচু ৪ টাকা ৫০ পয়সা দরে বিক্রি হলেও বাজারে তার দাম উঠেছে ৫ থেকে ৭ টাকা পর্যন্ত।

বাগান মালিকদের আশা, অতিরিক্ত চাহিদার কারণে লিচুর দাম আরও বাড়তে পারে। বাগান মালিকরা জানান, এখন চাহিদা বেড়েছে। দামও বাড়ছে। মাত্র ক দিনের ব্যবধানে প্রতিপিস লিচুতে ১ থেকে দের টাকা পর্যন্ত দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও আড়তদারা।

আড়তদাররা জানান, লিচুর কোয়ালিটি হিসেবে দাম কম বেশি আছে।

এ উপজেলার লিচু পীরগঞ্জের চাহিদা পূরণ করে প্রতিদিন বিভিন্ন পরিবহনে ঢাকা, সিলেট, চট্টগ্রাম, গাজীপুর সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্রির জন্য নেওয়া হচ্ছে ।

ভালো মানের প্রতিপিস লিচুর দর উঠেছে ৫ থেকে ৮ টাকা
পর্যন্ত। অনাবৃষ্টির কারণে ফলন কিছুটা কম হলেও এবার দাম ভালো পাওয়ায় বাগান মালিকরা লাভবান হবেন, দাবি কৃষি বিভাগের।

পীরগঞ্জ উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের উপ-সহকারি কর্মকর্তা
রফিকুল ইসলাম বলেন, উপজেলায় অনাবৃষ্টির কারণে ফলন কিছুটা কম হলেও
এবার দাম ভালো পাওয়ায় বাগান মালিকরা লাভবান হবেন।

লিচু রসালো ও পরিপূর্ন না হয়ে বাগান মালিকরা তার আগেই আড়তদারের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। তারা বলেন ভারী বর্ষণ বৃষ্টির পানিতে লিচু নষ্ট
হয়ে যায় এই ভয়ে। এ উপজেলায় ৩৫ জন আড়তদার আছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরো খবর
error: Content is protected !!
error: Content is protected !!